ফিচার ডেস্ক

মানুষ মাত্রই মিথ্যা বলে। সে যে কারো কাছেই হতে পারে। তবে আমরা জানি, চিকিৎসকের কাছে সত্য কথাই বলতে হয়। কিন্তু সেখানে গিয়েও সবাই কম-বেশি মিথ্যা কথা বলে থাকেন। কিন্তু কেন?

ইউনিভার্সিটি অব উটাহ হেলথ ও মিডিলসেক্স কমিউনিটি কলেজের গবেষণায় উঠে এসেছে এমন কিছু তথ্য। আসলে ঠিক কোন কারণে চিকিৎসকের কাছে মিথ্যা কথা বলেন রোগীরা? আসুন জেনে নেই সেই কারণগুলো-

• চিকিৎসা পদ্ধতির সঙ্গে একমত হতে না পারলেই রোগীর মধ্যে চিকিৎসককে মিথ্যা বলার প্রবণতা তৈরি হয়।
• অনেকে আবার চিকিৎসকের দেওয়া নির্দেশ বুঝতে না পারলেও মিথ্যা কথা বলেন।
• চিকিৎসক কোনো কারণে রেগে যেতে পারেন ভেবে সেই বিষয়ে বেশি জিজ্ঞসাও করতে চান না।
• অনেক সময় চিকিৎসকের কাছে মিথ্যা বলে পাশ কাটিয়ে চলে যেতে যান।
• চিকিৎসক কী ভাববেন, এই ভয়ে অনেকে চিকিৎসকের কাছে গিয়ে সত্য কথা চেপে যান।
• চিকিৎসক যদি রোগীর বদ অভ্যাস বদলানোর কথা বলেন, এই ভয় তাড়া করে রোগীকে।
• কখনো কখনো লজ্জাজনক রোগের কারণেও মিথ্যা বলেন রোগীরা।

গবেষণায় দাবি করা হয়, মিথ্যা কথা বলার কারণে অনেক সময়ে ভুল চিকিৎসার শিকার হন রোগীরা। কারণ চিকিৎসকের নির্দেশমতো ওষুধ না খেয়ে এবং মিথ্যা কথা বলে চিকিৎসককে বিভ্রান্ত করে। ফলে অনেক সময়ই ঠিকমতো চিকিৎসা হয় না রোগীর।