একের পর এক মিসাইল টেস্টের জন্য সবসময়ই সংবাদ শিরোনামে থাকে উত্তর কোরিয়া৷ এবার সেই মিসাইল টেস্টেরই সাক্ষী রইল ক্যাথায় প্যাসিফিক এয়ারলাইন্সের এক বিমান সেবিকা৷ চিন এবং আমেরিকার মাঝে দিয়ে বিমানটি উড়ে যাওয়ার সময়ই এই মিসাইলটি চোখে পরে তার৷

গত সপ্তাহেই ব্যালিস্টিক মিসাইল উৎক্ষেপণ করেছিল কিমের দেশ৷ এমনকি এই মিসাইল টেস্টের জেরে কেঁপে উঠেছিল এই দেশ৷ মিসাইলটি পূর্বদিকে গিয়ে জাপান সাগরের কাছে গিয়ে পড়ে৷সেই মিসাইলটি উৎক্ষেপন হতেই দেখেছিলেন ক্যাথায় প্যাসিফিক এয়ারলাইনের এক বিমান সেবিকা৷

আমেরিকাকে নিশানা করেই এই ব্যালিস্টিক মিসাইলটি উৎক্ষেপণ করে উত্তর কোরিয়া৷ যে বিমানটি থেকে বিমানসেবিকা ওই মিসাইলটি উৎক্ষেপণ হতে দেখেছিলেন সেই এয়ারলাইনটির নাম CX893৷ হংকং থেকে সান ফ্রাসিসকো যাচ্ছিল ওই বিমানটি৷ যদিও উত্তর কোরিয়ার এই ধরণের মিসাইল উৎক্ষেপণ এই প্রথম নয়৷ প্রায় ৪,৪৭৫কিমি উচ্চতায় গিয়েছিল এই মিসাইলটি৷ অপরদিকে, মিসাইলের ক্ষমতা এতটাই বেশি ছিল যে, মাটির প্রায় ৯৫০কিমি গভীরে গিয়েছিল এই মিসাইলটি৷

ক্যাথায় প্যাসিফিক এয়ারলাইন্স সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই বিমানসেবিকা সম্পূর্ণ বিষয়টি ব্যাখ্যা করেছেন৷ কিভাবে মিসাইলটি উৎক্ষেপণ হয় এবং জাপানের কাছে গিয়ে পরে সেটির সম্পূর্ণ গতিবিধিই নাকি তিনি দেখতে পেয়েছিলেন৷ প্রসঙ্গত ওই বিমানসেবিকার নাম প্রকাশ্যে আনেন নি ক্যাথায় প্যাসিফিক এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ৷