নিয়মিত ভ্যাট প্রদানকারী ব্যক্তি বা করদাতাদের এবার ভ্যাট অনার কার্ড দেয়া হচ্ছে। ২০১৬ সালের জুলাই থেকে ২০১৭ সালের জুন পর্যন্ত ভ্যাট নিবন্ধিত করদাতাদের মধ্যে যারা নিয়মিত ১২টি দাখিলপত্র জমা প্রদান করেছেন তাদের এ কার্ড দেয়া হবে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) এর নাম দিয়েছে ‘ভ্যাট অনার কার্ড’। জাতীয় ভ্যাট দিবসে এ কার্ড দেওয়া হবে। প্রাথমিকভাবে প্রায় ৩৫ হাজার করদাতাকে এ সম্মাননা কার্ড প্রদান করা হবে। কর প্রদানে উৎসাহ দিতে প্রথমবারের মতো এ কার্ড দেওয়া হচ্ছে।

সম্প্রতি এনবিআর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান নিয়মিত ভ্যাট প্রদানকারী করদাতাদের ভ্যাট অনার কার্ড দেয়ার ঘোষণা দেয়। এরপরই এ কার্ড প্রদানের প্রস্তুতি শুরু করে এনবিআর। সূত্র জানায়, যে সকল করদাতা প্রতি অর্থবছরে প্রযোজ্য সকল দাখিলপত্র জমা দিয়েছেন তাদেরকে ভ্যাট আইনের আওতায় কমপ্লায়েন্ট বা প্রতিপালনকারী করদাতা বলা হয়। মূল্য সংযোজন কর আইনের আওতায় দাখিলপত্রই প্রধান দলিল, যার মাধ্যমে করদাতার সব করদায়িতা নির্ধারিত হয়। ফলে ভ্যাট ব্যবস্থায় দাখিলপত্রের গুরুত্ব অপরিসীম।

১৯৯১ সালের ভ্যাট ব্যবস্থায় বর্তমানে ৮ লাখ ৮৬ হাজার নিবন্ধিত করদাতা রয়েছেন। এর মধ্যে মাত্র ৩৬ হাজার করদাতা নিয়মিত দাখিলপত্র (রিটার্ন) দাখিল করেন।

সূত্র জানায়, ভ্যাট অনার কার্ড হবে প্লাস্টিকের। সাদা কার্ডের এক পাশে সাদা-কালো প্রিন্টে মৌলিক তথ্য (যেমন ওয়েব এড্রেস, কলসেন্টার নম্বর, সাপোর্ট ই-মেইল) থাকবে। অপর পাশে থাকবে চার রঙে প্রিন্ট। রঙিন অংশে করদাতা প্রতিষ্ঠানের নাম, কার্ড নম্বর এবং কার্ডের মেয়াদ ছাপা থাকবে। কার্ডের মেয়াদ হবে পরবর্তী একবছর।

এদিকে পরবর্তী বছরের কার্ড ভ্যাট অনলাইন সিস্টেমের সুযোগ ইতোমধ্যেই তৈরি করা হয়েছে। এ বছর এটি ভ্যাট অনলাইন প্রকল্পের মাধ্যমে কেন্দ্রীয়ভাবে দেওয়া হবে। এ জন্য নিয়মিত করদাতাদের তথ্যের তালিকা দিতে ইতোমধ্যে ঢাকাসহ সারাদেশে ৮৪টি ভ্যাট বিভাগ ও ২৫২টি সার্কেলে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

সূত্র আরও জানায়, জাতীয় ভ্যাট দিবসে ঢাকায় অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এ কার্ড দেওয়ার কথা ভাবছে এনবিআর। অর্থমন্ত্রী প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এ কার্ড প্রদান করবেন। এছাড়া ভ্যাট অনার কার্ডধারীদের নামের তালিকা (কার্ডের ছবিসহ) এনবিআরের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে।