লাইফস্টাইল: শরীরের কোথাও ব্যথা হলে আমরা প্রথমে পেইন কিলার জাতীয় ওষুধ সেবন করে থাকি। ডাক্তারদের কাছে গেলেও নানা ধরনের পেইন কিলার ট্যাবলেট বা অন্যান্য খাবার ওষুধ দেওয়া হয়। কিন্তু অনেক বিশেষজ্ঞগণই এখন রোগীদের পেইন কিলার সেবন না করার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। এব্যাপারে বিশেষজ্ঞগণ ওষুধ ছাড়া পেইন নিরাময়ে ১৩ ধরনের খাবারের নাম উল্লেখ করেছেন। এগুলো হচ্ছে, বøাক কফি, চেরিফল, অলিভ অয়েল, চেজ নামের এক ধরনের হারব, আদা, গ্রিন টি, স্যালমন ফিস, লাল মরিচ, লবঙ্গ, দারুচিনি, হলুদ, রসুন, সয়, আনারস ইত্যাদি। বিশেষজ্ঞগণ গবেষণায় দেখেছেন, বøাক কফি মাথা ব্যথা নিরাময়ে কার্যকর। ঝুঁকি হ্রাসে সহায়ক ক্যান্সারের।

চেরি ফলে আছে পেইন ফাইটিং অ্যান্থোসায়ানিনস নামক এক ধরনের পদার্থ যা ব্যথা নিরাময়ে কার্যকর। অলিভ ওয়েল ব্যথা নিরাময়ে সহায়ক। পাশাপাশি ঝুঁকি কমায় স্ট্রোক ও ক্যান্সারের। চেজ নামের একটি ইনফ্লামেটরী হারবের মধ্যে রয়েছে ফ্লাভোনয়েডস নামক এক ধরনের উপাদান যা পেশী বা অস্থিসন্ধির ফোলাভাব নিরাময়ে সহায়ক। আদা হাজার বছরের পুরাতন ওষুধিগুন সম্পন্ন খাদ্য উপাদান। হার্টের সমস্যা, পাকস্থলীর ব্যথা থেকে শুরু করে আদার রয়েছে বহুবিধ নিরাময় ক্ষমতা। গ্রীনটিতে রয়েছে পলিপেনলস নামের এক ধরনের উপাদান যা রক্তে ক্ষতিকর ফ্রির্যাডিকেলস হ্রাসে সাহায্য করে। ফলে প্রদাহ কম হয়।

স্যালমন ফিসের ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড ও প্রটিন টাইট জয়েন্টকে শিথিল করতে সহায়ক। লাল মরিচের ক্যাপসাসিন নামক উপাদান পেইন রিলিফে সহায়ক হয়। যে কারণে ক্যাপসাসিন দিয়ে আর্থ্রাইটিস নিরাময়ের অয়েন্টমেন্ট পর্যন্ত তৈরি করা হয়। দারুচিনির এন্টি ব্যাকটেরিয়াল ও এন্টি ইনফ্লামেটরি উপাদান বুক জ্বালাপোড়া লাঘবে কার্যকর। লবঙ্গের মধ্যে রয়েছে ইউজেনল নামক এক ধরনের রাসায়নিক পাদার্থ যা বাত ব্যথাজনিত অস্থি ও তরুণাস্থির ক্ষতি রোধে সহায়ক। হলুদের মধ্যে রয়েছে কারকিউমিন নামক এক ধরনের পদার্থ যা প্রদাহ নিরাময় ছাড়াও এন্টি ক্যান্সার উপাদান হিসেবেও কাজ করে।

রসুনের নানা ভেষজ গুণের পাশাপাশি সোরিয়াটিক আর্থাইটিস নিরাময়ে কার্যকর। সয়া প্রটিন হাঁটুর ব্যথা নিরাময়ে ব্যবহূত হয়। জাপানের ওকলাহামা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণা রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে যারা একটানা তিন মাস সয় প্রটিন আহার করবেন তাদের হাঁটুর ব্যথা অনেক কমতে পারে। কারণ সয় প্রটিনে আছে আইসোফ্লাবেনেজ নামক এন্টি ইনফ্লামেটরি উপাদান। পাইন আপেল বা আনারস অস্টিওআর্থাইটিস নিরাময়ে সহায়ক।