আজ ৯ ডিসেম্বর রোববার বেগম রোকেয়া দিবস। নারী জাগরণের পথিকৃৎ বেগম রোকেয়া সাখাওয়াত আজকের দিনে রংপুরের মিঠাপুকুর উপজলোর পায়রাবন্দের এক নিভৃত পল্লীতে জন্ম নেন। ১৮৮০ সালে জন্ম নেয়া মহিয়সী এই নারী ১৯৩২ সালের আজকের দিনটিতেই কোলকাতার সোদপুরে মৃত্যুবরণ করেন। এদিকে নারী জাগরণের অগ্রদূতের জন্ম ও প্রয়াণ দিবসে নারী মুক্তির আন্দোলন বেগবান করার দৃপ্ত শপথে সারাদেশে যথাযোগ্য মর্যাদায় দিবসটি পালনে নানান আয়োজন করেছে। দিবসটি উপলক্ষে রাজধানী ঢাকাসহ বেগম রোকেয়ার জন্মস্থান রংপুরের পায়রাবন্দে এবং দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, স্কুল-কলেজ ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে গভীর শ্রদ্ধায় রোকেয়ার নীতি ও আদর্শকে স্মরণ করবে। নারীর ক্ষমতায়ন প্রতিষ্ঠার বেগম রোকেয়ার মতো নারী সমাজকে স্বনির্ভন জাঁতি গঠনে এগিয়ে আসার আহŸান জানিয়ে দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি অ্যাডভোকেট আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিরোধী দলীয় নেত্রী বেগম রওশন এরশাদ ও জাতীয় সংসদের স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী পৃথক বাণী দিয়েছেন। বাণীতে তারা রোকেয়ার চেতনা, নীতি-নৈতিকতা ও আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে নারীমুক্তি আন্দোলন বেগবান করার আহŸান জানান। বাংলা তথা উপমহাদেশের বন্দি নারীদের শেকল ছিড়ে স্বমহিমায় আলোকিত জীবন গড়ার প্রদীপ জ¦ালানিয়া রোকেয়া ১৮৮০ সালের ৯ ডিসেম্বর রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার পায়রাবন্দের নিভৃত পল্লী খোর্দ্দমুরাপুর গ্রামের বিখ্যাত সাবের পরিবারের জহির উদ্দিন মোহাম্মদ আবু আলী হায়দার সাবের ঔরসে ও রাহাতুন্নেসা সাবেরা চৌধুরানীর গর্ভে জন্মগ্রহন করেন। ১৮ বছর বয়সে খান বাহাদুর সাখাওয়াত হোসেন সাহেবের সাথে তার বিয়ে হয়। ২৮ বছর বয়সে স্বামী হারান তিনি। ১৯১০ সালের শেষ দিকে কোলকাতায় যান তিনি। এরপর তিনি দু পারেই নারী জাগরন ও উন্নয়নে কাজ করেছেন। রাষ্ট্র, সমাজ ও পরিবার ব্যবস্থায় নারীর সমান অধিকারের জন্য মহিয়সী নারী বেগম রোকেয়া আমৃত্যু লড়াই করেছেন। রোকেয়া তার মতিচ‚র, সুলতানার স্বপ্ন, পদ্মরাগ, অবরোধবাসিনী ইত্যাদি কালজয়ী গ্রন্থে ক্ষুরধার লেখনীর মাধ্যমে ধর্মীয় গোঁড়ামি, সমাজের কুসংস্কার ও নারীর বন্দিদশার স্বরূপ উন্মোচন করেছেন। বাল্যবিবাহ, যৌতুক, পণ প্রথা, ধর্মের অপব্যাখ্যাসহ নারীর প্রতি অন্যায় আচরণের বিরুদ্ধে তিনি রুখে দাঁড়িয়েছেন। মৌলিক মানবাধিকার থেকে বঞ্চিত রেখে নারীকে গৃহকোণে আবদ্ধ রাখার ধ্যান-ধারণা পাল্টাতে তিনি ছিলেন সদা সোচ্চার। তার দেখিয়ে দেওয়া পথ ধরেই নারীমুক্তি আন্দোলন চলছে। কিন্তু রোকেয়ার স্বপ্ন আজও অপূর্ণ রয়ে গেছে।
এদিকে বেগম রোকেয়া দিবস উপলক্ষে আজ রোববার ল²ীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলা প্রসাশনের উদ্যোগে দিন দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে রামগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের নির্বাহী কর্মকর্তা খোন্দকার মোহাম্মদ রেজাউল করীম।
এ ছাড়া মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর ‘জয়িতা ফাউন্ডেশন’ শীর্ষক নারী সংগঠনের পক্ষ থেকে অলোচনা সভা, চিত্রাঙ্কন, কবিতা আবৃত্তি, নির্ধারিত বক্তৃতা, কুইজ প্রতিযোগিতাসহ সচেতনামূলক নাটিকা প্রদর্শনী, সম্মাননা স্মারক প্রদান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে আয়োজন করেছে।