অনলাইন ডেস্কঃ সোশ্যাল সাইটে ছেলেরাই সব থেকে বেশি মিথ্যা কথা বলে। সম্প্রতি এক গবেষণায় এমনই এক চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে। অনলাইনে বেশি মিথ্যা তথ্য দেয় ছেলেরা। তারা কোন পোস্টে লাইক পাওয়ার জন্য মেয়েদের তুলনায় বহু ভিত্তিহীন কাজকর্ম করে। সেই সঙ্গে জানা গেছে, সোশ্যাল সাইটগুলো ছেলেরা নিজেদের যোগাযোগের জন্য নয় বরং নিজেকে শো অফ করার জন্যেই বেশি ব্যবহার করছে।

সম্প্রতি গবেষকরা তাদের এক গবেষণায় জানিয়েছেন, বিভিন্ন পোস্টে কত বেশি লাইক পাওয়া যায় তা নিয়েই যেন প্রতিযোগিতা চলে। আর এ প্রতিযোগিতায় মেয়েদের তুলনায় ছেলেরাই বেশি অসুস্থ মনোভাবের পরিচয় দেয়। তারা এমনকি নিজেদের পোশাকহীন ছবি কিংবা মিথ্যা তথ্য প্রকাশ করেও এ প্রতিযোগিতায় এগিয়ে থাকতে চায়। সোশ্যাল সাইটে ছেলেদের তুলনায় মেয়েরা অনেক বেশি ভদ্রতা বজায় রাখে বলে জানা গিয়েছে। তারা সাধারণত ভিত্তিহীন কর্মকাণ্ড করে না।

এ বিষয়ে ক্যাসপারস্কি ল্যাবের হেড অব সোশ্যাল মিডিয়া এভগেনি চেরেশনেভ বলেন, “তাদের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের স্বীকৃতির জন্য অনেকেই নিজেদের সীমা ভুলে যান। কোন বিষয়টি প্রাইভেট রাখা উচিত এবং কোন বিষয়টি সর্বসম্মুখে প্রকাশ করা উচিত তাও তাদের মনে থাকে না। “

জার্মানির ইউনিভার্সিটি অব উর্জবাগের মিডিয়া সাইকোলজিস্ট অ্যাস্ট্রিড ক্যারোলাস বলেন, “লাইকের খোঁজে পুরুষরা মেয়েদের তুলনায় বেশ এগিয়ে থাকেন। তারা প্রায়ই এমন সব বিষয় পোস্ট করেন, যা হালকা হয়ে ওঠে। “

গবেষণায় দেখা যায়, সোশ্যাল সাইটে ৯% পুরুষ নিজেদের নগ্ন ছবি শেয়ার করে, যা মেয়েদের ক্ষেত্রে অনেক কম। এছাড়া ১২% মানুষ স্বীকার করেছে তারা সোশ্যাল সাইটে ভুল তথ্য তুলে ধরে। এক্ষেত্রে ১৪% পুরুষ নিজেদের বিষয়ে মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করে। এছাড়াও নিজেদের ও নিজের বন্ধু বা সহকর্মীদের অপ্রস্তুত করে দেওয়া পোস্ট প্রকাশেও পুরুষেরা এগিয়ে রয়েছে।