আন্তর্জাতিক ডেস্ক :: রাশিয়ার এক নারী সাংবাদিক গ্রেফতার হয়েছে ইরানে। তার নাম ইউলিয়া ইউজিক।
ওই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি ইসরায়েলি গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের হয়ে গুপ্তচরবৃত্তি করছিলেন ইরানে।

রুশ দূতাবাসের মুখপাত্র আন্দ্রে গানেঙ্কোর বরাত দিয়ে কাতারভিত্তিক আর্ন্তজাতিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা জানিয়েছে, গত ২৯ সেপ্টেম্বর তেহরানের ইমাম খোমেনী (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে রুশ সাংবাদিক ইউলিয়ার পাসপোর্ট জব্দ করে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ। তবে তাকে ইরানে প্রবেশ করতে অনুমতি দেয়া হয়।

কিন্তু ২ অক্টোবর তেহরানের একটি হোটেল থেকে ইউলিয়া ইউজিককে আটক করে দেশটির আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

এ ঘটনার ক্ষোভ প্রকাশ করেছে মস্কো। এর ব্যাখ্যা জানতে চেয়ে এরইমধ্যে মস্কোয় নিযুক্ত ইরানের রাষ্ট্রদূত মাহদি সানায়িকে তলব করেছে রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

এ বিষয়ে শুক্রবার (৪ অক্টোবর) রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা তার ফেসবুক পেজে লিখেন, ‘তেহরানে রাশিয়ার নারী সাংবাদিক ইউলিয়া ইউজিকের আটক হওয়ার ব্যাপারে বিস্তারিত তথ্য জানার জন্য ইরানি রাষ্ট্রদূতকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়েছে।’

এর আগে রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় টিভি চ্যানেল খবর প্রকাশিত হয়, ৩৬ বছর বয়সী রুশ সাংবাদিক ইউলিয়া ইউজিকের বিরুদ্ধে ইসরাইলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের পক্ষে গুপ্তচরবৃত্তি করার অভিযোগ এনেছে তেহরান। সেখানে একটি হোটেল থেকে তাকে আটক করা হয়েছে। তার পাসপোর্ট জব্দ করা হয়েছে।

এর পর রাশিয়ার স্পুৎনিক বার্তা সংস্থা জানায়, শুক্রবার ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আব্বাস মুসাভি এক প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেছেন, রুশ নাগরিক ইউলিয়ার বিষয়ে কিছু অসঙ্গতি পেয়েছে তেহরানের গোয়েন্দা সংস্থা। সে সম্পর্কে প্রশ্ন করার জন্য ইউলিয়াকে আটক করা হয়েছে। তাকে শিগগিরই ছেড়ে দেয়া হবে।

এদিকে তেহরানস্থ রুশ দূতাবাসের মুখপাত্র আন্দ্রে গানেঙ্কো বলেছেন, ওই রুশ সাংবাদিক তেহরানস্থ রাশিয়ার দূতাবাসের সঙ্গে সমন্বয় না করেই ইরান সফরে এসেছিলেন। তাই বিষয়টি একটু ঘোলাটে রূপ ধারণ করেছে।

এমন পরিস্থিতিতে না পড়তে ইরান সফরের আগে রুশ সাংবাদিকদের তেহরানস্থ রুশ দূতাবাসের সঙ্গে যোগাযোগ করে আসতে বলেন তিনি।