প্রতিদিনই বেড়ে চলছে আত্মহত্যার প্রবণতা। আর এই অকাল মৃত্যুরোধে এবার বিশ্বজুড়ে আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স বা এআই নিয়ে আসার কথা জানিয়েছে ফেসবুক।

এর আগে শুধু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পরীক্ষামূলকভাবে চালু করা হয়েছিল টেকনোলজিটি। আশানুরূপ সফলতা অর্জন করায় এবার গোটা বিশ্বে এর পরিধি বাড়াতে চলেছে। পোস্ট ও কমেন্টের প্যাটার্ন বিশ্লেষণের মাধ্যমে আত্মহত্যার প্রবণতা চিহ্নিত করে এ সফটওয়্যার। ইউজারের করা পোস্ট ও কমেন্ট স্ক্যান করে এর মধ্য থেকে আত্মহত্যার ঝুঁকি বিদ্যমান এমন সব উপাদান, যেমন- ‘আপনি কি ঠিক আছেন?’ ‘আপনার কি সাহায্য প্রয়োজন?’ ইত্যাদি খুঁজে বের করবে সফটওয়্যারটি।

আত্মহত্যার কোনো সম্ভাবনা পাওয়া মাত্র ফেসবুক কর্তৃপক্ষকে সতর্ক করা হবে। ফেসবুক তখন স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে এ বিষয়ে জানাবে। ইউজারকে টেলিফোন হেল্প লাইনের মাধ্যমে সাহায্য গ্রহণেরও পরামর্শ দেওয়া হবে। ফেসবুকের ভাইস প্রেসিডেন্ট গাই রোজেন বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অভ্যন্তরে আমরা সফলতা পেয়েছি। সুতরাং, অন্য দেশের জন্যও আমরা সফটওয়্যারটি চালু করতে যাচ্ছি।

আত্মহত্যার ক্ষেত্রে সময় খুবই মূল্যবান। সাহায্যের দরকার এমন মানুষের কাছে তাৎক্ষণিকভাবে পৌঁছাতে চাই আমরা। জানা গিয়েছে, ফেসবুক কর্তৃপক্ষ বিশেষ দক্ষতাসম্পন্ন কর্মী নিয়োগ করতে চলেছে। এসব কর্মী বিশ্বের বিভিন্ন দেশের স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে সেদেশের ভাষায় সতর্ক করার জন্য সব সময় প্রস্তুত থাকবে। গত মার্চ মাসে পরীক্ষামূলকভাবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে চালু করা হয়েছিল সফটওয়্যারটি।